Time Travel চলুন ফিরে যাই দাদার আমলে Windows 1.0.1 তে বিস্তারিত না পড়লেই মিস করবেন

0

আমরা তো সবাই ডিজিটাল যুগে বসবাস করছি। আর কম্পিউটারের বদৌলতে তো নিজেরাও হয়েছি আধুনিক। আর আমাদের ডিজিটাল জগতের অন্যতম সেক্টর হলো কম্পিউটার। 



এর এটা এমনি এক যন্ত্র যার উপর নির্ভর করে প্রযুক্তিগত সকল কিছুই। কম্পিউটার যেহেতু একটি যন্ত্র তাই তাকে অপারেট করার জন্য দরকার হয় উইন্ডোজ কিংবা অপারেটিং সিস্টেম। 

উইন্ডোজ এর কাজ হলো Hardware এর সাথে Software এর সম্পর্ক তৈরী করা।Windows ইন্সটল করার ফলে আপনি কম্পিউটার থেকে নানান ধরনের কাজ করতে পারেন।আর আপনি হয়তো Windows Xp,Vista, 7,8 ,10 etc ব্যবহার করেছেন। তাহলে এটাও জেনে থাকবেন যে এর নির্মাতা মাইক্রোসফট।  


আর এই Microsoft সেই আদিকাল থেকেই তাদের সিস্টেম আপডেট করেই যাচ্ছে। যাতে আরো বেশী ফিচার আমরা ব্যবহার করতে পারি। 

যদি কেউ এর আগে Microsoft Windows 1.0 না চালিয়ে থাকেন তবে বাকী অংশ দেখুন মাথা নষ্ট হয়ে যাবে। 

Windows 1.0

১৯৮৫ সালের ২০শে নভেন্বর Microsoft তাদের নতুন অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ ১.০ প্রকাশ করে। IBM PC XT (Model 5160) কম্পিউটারে প্রথমবার উইন্ডোজ ১.০ চালানো হয়। এই অপারেটিং সিস্টেমটি চালানোর জন্য দরকার হবে মাত্র 256 KB সাইজের Ram.আর Hard Disk দরকার হবে আমার আপনার মেমোরী কার্ডের থেকেও ছোট Storage.
দাদার আমলের সেই IBM PC XT (Model 5160) কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক ছিলো মাত্র ১০ মেগাবাইট। যা তখন দরকারের তুলনায় যথেষ্ট বেশি ছিলো। এই কম্পিউটারের Clock Speed ছিলো 4.77 Megahertz. আজ আমরা আমাদের কম্পিউটারে চালিয়ে দেখাবো আদি যুগের Microsoft এর এই অসাধারন Operating System.
IBM PC XT (Model 5160) যার মাধ্যমে Windows 1.0.1 চালানো হয়েছিলো।
এর আগে আমি একটি আর্টিকেল শেয়ার করেছিলাম Virtual Machine নিয়ে।যার ব্যবহার করে Windows কম্পিউটারে Android,Linux Kernel কিংবা Macintosh Operating System গুলো চালোনো যায়। তবে এই Windows টি চালাতে কোন Virtual Machine এর প্রয়োজন পড়বেনা।
আমরা তা আমাদের নিজেদের Computer অথবা Mobile Browser থেকেই চালাতে পারবো। আপনি হয়তো ভাবছেন কিভাবে ? 
এর জন্য আপনার সর্বোচ্চ গেলে 5MB খরচ করতে হবে এর বেশী দরকার হবে না।তবে Loading হতে কতটুকু টাইম নিবে তা নির্ভর করে আপনার ইন্টারনেট এর গতির উপর। আমি পোষ্টের শেষে লিংক দিয়ে দিবো যাতে আপনারাও ব্যবহার করতে পারেন। তবে দেখে নেই কিছু Screenshort সাথে Review.
Windows 1.0.1 ব্যবহার করতে পারবেন CGA কিংবা EGA Display ফিচারের মাধ্যমে।
  • CGA Display
  1. IBM PC XT, 256Kb RAM, 10Mb Hard Disk, Color Display

  • EGA Display

  1. IBM PC XT, 640Kb RAM, 10Mb Hard Disk (Formatted), 128Kb EGA, Enhanced Color Display


আপনি চাইলে দুটোই ব্যবহার করে দেখতে পারেন। তাহলে আমার যুক্ত করা লিংকে প্রবেশ করার পর Loading সফল হলে নিচের মত আসবে।
Windows 1.0.1 Boot Logo
Loading শেষ হয়ে গেলে পেয়ে যাবেন আপনার জন্য Windows 1.0.1 . তাই অপেক্ষা করতে হবে মূল Interface না আসা পর্যন্ত। আর তারপরেই লাগবে অদ্ভুত।

উপরে যা দেখতে পারছেন তা Windows 1.0.1 এর মূল Interface. আমি আপনি যেমন Desktop বলে থাকিনা ঠিক তেমনি এটা। তবে দাদার আমলের বলে একটি অপরিচিত লাগছে আর কি। শত হলেও আমরা Time Travel করে আদি যুগে ফিরে এসেছি।
আপনি যেমন Start Menu তে ক্লিক করা মাত্র Category দেখতে পান এখানেও ঠিক তেমন। আপনি যেমন সেখানে Menu তে ক্লিক করে SubMenu তে প্রবেশ করেন এখানেও ঠিক সেটাই। তবে পার্থক্য হলো এখানে A,B,C হলো আপনার Category. A অথবা B কিংবা C তে ক্লিক করে Windows 1.0.1 এর ফিচার গুলো দেখতে পারবেন। যেমন উপরের চিত্রে A.
উপরের চিত্র টি B ক্যাটাগরি তে থাকা পোগ্রামগুলোর। এখানেও আপনি Menu নয়তো SubMenu পেয়ে যাবেন। তবে কথা একটাই আপনি মাউসে Double Click করে প্রবশ করতে পারবেন না। Sub Menu তে ঢোকার জন্য মাউস ক্লিক করে রাখতে হবে।
উপরের চিত্র রয়েছে C তে থাকা পোগ্রামগুলো। এখানেও আপনাকে উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে।  আর যেহেতু এটা ৩০+ বছর আগের অপারেটিং সিস্টেম তাই অনেক কিছুই আপনার অচেনা হতে পারে তবে চলুন দেখে নেই এর কিছু ব্যবহার।

How To Use Windows 1.0.1  


আমরা বর্তমান সময়ের উইন্ডোজ গুলোতে অনেক কিছু করতে পারি। তবে তাতে কিছু নির্দিষ্ট ফিচার যুক্ত করা থাকে। যেমন Calculator,Calendar,Paint, Notepad ইত্যাদি। তাহলে অবশ্যই Windows 1.0.1 এর জন্য ফিচার Microsoft তৈরী করেছিলো কি সেগুলো। হয়তো ৩০ বছর আগেও এসব কাজ করা যেতো।

আপনি যদি Program গুলো চালিয়ে দেখতে চান তবে View Menu তে মাউস ক্লিক করে ধরে রাখুন।
SubMenu দেখা দিলে Programs নির্বাচন করুন।


Program গুলো উপরে রয়েছে যা দেখে মনে হচ্ছে ৩০+ বছর আগে আমাদের দাদা যারা ছিলেন অনেক কিছুই মিস করে গিয়েছে। যদি তারা কম্পিউটার চালিয়ে থাকে আর কি।


আপনার Program গুলোতে প্রবেশ করার জন্য .exe ফাইল গুলোতে ক্লিক করতে হবে শুধু। যেমন আমি Calculator.exe ফাইলে ক্লিক করার পর আমার হিসাব নিকাশ করার জন্য Calculator চলে এসেছে। আমিও হিসাব কষে নিলাম ৫০+৫০= ১০০ রেজাল্ট দিচ্ছে ঠিকমতো। শুধু শুধু তো আর Abacus এর আপডেট হিসাবে Computer আবিস্কার হয়নি।


আপডেট Windows গুলোর মত আপনি Close নামক X আইকন টি ব্যবহার করতে পারবেন না। তাই আপনাকে উপরের চিত্রের মত করে Close করতে হবে।

সময় জানতে ঘড়ির বিকল্প কিছু নেই। কারন কথায় আছে সময়ের এক ফোড় অসময়ের দশ ফোড়ের সমান। তাই হয়তো ঘড়ি যুক্ত করতে ভুলে যায়নি Microsoft.


Paint Program টা ব্যবহার করার লোভ সামলাতে পারলাম না তাই নিজের একটি Text তৈরী করলাম Box আকারে। আপনিও চাইলে তাদের Paint পোগ্রাম ব্যবহার করে দেখতে পারেন।


আপনারা Microsft Office নিশ্চই ব্যবহার করেছেন এবার তাহলে আদি যুগের লেখার পোগ্রাম টি দেখে নিন। এর নাম Write.Exe আপনিও চাইলে ব্যবহার করে দেখতে পারেন।  আর পাশাপাশি যদি Code Practice করতে চান তবে আপনার জন্য বিদ্যমান রয়েছে Notepad.exe ব্যবহার করে দেখতে পারেন।


আমাদের ব্যবহার করা Control Panel অনেক আধুনিক আমরা অনেক Lucky যে আদি যুগের ফিচার ব্যবহার করতে হয় নি ।


সব গুলো যদি উল্লেখ করতে থাকি তবে আর্টিকেল অনেক বড় হয়ে যাব। বাদ বাকী ফিচার গুলো দেখতে চাইলে আপনি নিজেই 5Mb খরচ করে চালিয়ে দেখতে পারবেন।


নিচে লিংক দেওয়া হলো আপনিও মজা নিন Windows 1.0.1 এর সাথে বন্ধুদের দেখিয়ে চমকে দিন।

Windows 1.01


যদিও এটাতে ভালো ফিচার নেই তবে একটা কথা জেনে রাখুন এই অপারেটিং সিস্টেম আপডেট হতে হতে আজ Windows 10 হয়েছে। আজ আমরা যা ব্যবহার করছি আমাদের আগামী প্রজন্ম হয়তো তা দেখে আমার মতই বলবে ইস দাদারা কত ফিচার মিস করে গেছে। কারন সময়ের সাথে সাথেই পরিবর্তন হতে থাকবে সব কিছু। আজ আমরা যা উপভোগ করছি আগামীর জন্য হয়তো তা কিছুই না।


জানিনা আপনাদের কাছে আর্টিকেল টি কেমন লেগেছে। তবে যদি ভালো লেগে থাকে তবে আপনার মূল্যবান মতামত, লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করে অন্যদের জানিয়ে দিতে ভুলবেন না কিন্তু।

আবারো দেখা হবে অন্য কোন সময় নতুন কিছু নিয়ে তাই আমাদের প্রতিটি আপডেট পেতে প্রতিদিন ভিজিট করুন। 


লেখকঃ ইসমাঈল হোসেন সৌরভ।

Choose your Reaction!
Leave a Comment

Your email address will not be published.